1. admin@swapno.info : admin :
  2. mysteriousmunna@gmail.com : RH Munna : RH Munna
  3. swapnobarta@gmail.com : Shohidul Islam Swapno : Shohidul Islam Swapno
প্রত্যন্ত অঞ্চলে নিজেদের তৈরি শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন শিশুরা | স্বপ্ন ইনফো
bn Bengali
bn Bengalien English
July 23, 2021, 7:25 pm

প্রত্যন্ত অঞ্চলে নিজেদের তৈরি শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন শিশুরা

এইচ এম কাওসার মাতবর
  • Update Time : Sunday, February 21, 2021
  • 149 Time View

নিজস্ব প্রতিনিধি: আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে আমতলীর প্রত্যন্ত অঞ্চলে কলা গাছের তৈরি শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানিয়েছে কোমলমতি শিশুরা। তারা নিজ হাতেই গড়েছে এই শহীদ মিনার, তারপর ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে। কেউ বাড়ির গাছের ফুল দিয়ে, কেউ বাবা মায়ের কাছ থেকে টাকা নিয়ে ফুল কিনে শ্রদ্ধা জানিয়েছে। শিশুরা জানিয়েছে, অভিভাবক এবং বই পড়ে শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের তাৎপর্য জেনে তারা এমন উদ্যোগ গ্রহণ করে।

রবিবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সকালে সরেজমিনে দেখা যায়, আমতলী উপজেলার, কুকুয়া বাজার, চুনাখালি, মহিষকাটা, গাজীপুর ,গোছখালী, কলাগাছিয়া বাজার,আঠারোগাছিয়া, সোনাখালি, চাওড়া, ঘটখালিসহ, প্রত্যন্ত অঞ্চলের শিশুরা বাড়ির উঠানে মাটি দিয়ে উচু করে কলাগাছ পুতে শহীদ মিনার বানিয়েছে। শিশুরা তাতে বাঁশের কঞ্চি ও রঙিন কাগজ ও বেলুন লাগিয়ে সৌন্দর্য্য বাড়িয়েছে।

প্রতিটি মিনারের ওপর অপেক্ষাকৃত ছোট কলাগাছের আরো তিনটি টুকরা তির্যকভাবে আটকে দেওয়া হয়েছে। রঙিন কাগজ ও নানা রঙের ফুল দিয়ে প্রতিটি মিনার মুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। চারপাশে সুতা টানিয়ে তাতে রঙিন কাগজ ও বেলুন দিয়ে সীমানা নির্ধারণ করা হয়েছে। শহীদ বেদীতে বুনোফুল, গাঁদা ও গোলাপফুল শোভা পাচ্ছে। পাশেই সাউন্ড সিস্টেমে দেশাত্মবোধক গান বাজছে। কোথাও কোথাও ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো শেষে ভোজের আয়োজনও করেছে শিশুরা।

শিক্ষার্থী জুইরিয়া ও জুথি জানায়, ফেব্রুয়ারি মাস শুরু হলেই আমরা পরিকল্পনা শুরু করি, কিভাবে শহীদ মিনার বানাবো, কোথায় ফুল পাবো, কে কে আমাদের কাজে সহযোগিতা করবে। ২০ ফেব্রুয়ারি থেকে আমরা কাজ শুরু করি। ২১ ফেব্রুয়ারি সকালে গ্রামের ছেলে মেয়েরা মিলে মিশে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করি।’

আরেক শিক্ষার্থী মাসুদ ইয়ামিন ও ইমরান জানায়, ‘বাবা, মা ও স্কুলের বড় ভাইয়ের কাছ থেকে ২১ ফেব্রুয়ারি সম্পর্কে জেনেছি। কিভাবে শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন করতে হয় সেটাও আমাদের জানা থাকায় ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছি।

শিক্ষার্থী কবির জানায়, ‘আমাদের মধ্যে কেউ নিজের বাড়ির ফুল আবার অনেকেই শহর থেকে ফুল কিনে এনে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছি। শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ভালই লাগছে।

মারিয়া ও মিম জানায়, ‘আমি জানতে পেরেছি বাংলা ভাষার জন্য রফিক, শফিক, জব্বারসহ অনেকেই শহীদ হয়েছেন। তাদের সম্মানে সকালে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছি।’

সিয়াম মাদবার বলেন, গ্রামে কোন স্থায়ী শহীদ মিনার না থাকায় সকালে শিশুরা নিজেদের তৈরি কলা গাছের শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছে। গ্রামে যে ফুল পাওয়া সেই ফুল দিয়েই শহীদের শ্রদ্ধা জানিয়েছে। আবার অনেকেই শহর থেকে ফুল আনছে।

সচেতন নাগরিকরা বলেন, নিঃসন্দেহে এটি একটি ভাল দিক। অন্ততপক্ষে গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলের শিশুরা বুঝতে পারছে ২১ ফেব্রুয়ারিতে একটা কিছু হইছে। সেজন্য গ্রামের কোমলমতি শিশুরা কলা গাছ দিয়ে শহীদ মিনার করে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছে। এটা নিঃসন্দেহে ভাল দিক।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category